টানা ২৫ রাত পরীমনির সঙ্গে লঞ্চে, সিয়াম বললেন ‘পরীর দিলখোলা’

২৫ দিন-রাত কেটেছে লঞ্চেই। খাওয়া-দাওয়া, ঘুম, গোসল কিংবা আড্ডা—কাজের পাশাপাশি সবই হয়েছে। এমনকি মন ভরে সুন্দরবনটাও দেখা হয়েছে তাদের।

লঞ্চে করে ঘুরে সময়-অসময়ে নানা রকম চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়েছে। ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ সিনেমার শুটিংকালে দিনগুলো বেশ ভালোই কেটেছিল সিয়াম আহমেদ ও পরীমনির।

এই সিনেমার মাধ্যমে পরীমনির যেমন স্বপ্নপূরণ হয়েছে, তেমনি সিয়ামের কাছে এটি ছিল ইচ্ছেপূরণের সময়। কারণ শুটিংয়ে দেশের অনেক জায়গা গেছেন

পরীমনি। কিন্তু কয়েকবার পরিকল্পনা করেও শেষে সুন্দরবন যাওয়া হয়নি। এই সিনেমার মাধ্যমেই এই ঢালিউড কন্যার সুন্দরবন ভ্রমণের স্বপ্ন এবার পূরণ হলো।

সিয়ামের ব্যাপারটিও অনেকটা সে রকম। তবে সেটা সুন্দরবনবিষয়ক নয়। ছোটবেলায় স্কুলের পড়াকালে অনেক চেষ্টা করেও মুহম্মদ জাফর ইকবালকে একটু ছুঁয়ে দেখতে পারেননি। তার সেই ইচ্ছা পূরণ হয়েছে।

ছবিটি সম্পর্কে সিয়াম আহমেদ আগেই বলেন, ‘এটা জুয়েল (নির্মাতা) ভাইয়ের প্রথম সিনেমা। প্রথম সন্তান। আমরা সে সন্তানকে অনেক যত্নে বড় করার চেষ্টা করেছি। অনেক কষ্ট করেছি। এখন দর্শকরা ছবিটি গ্রহণ করলে ভালো লাগবে।’

অন্যদিকে পরীমনি বলেন, ‘পুরো ছবিতে বলা যায় মেকআপবিহীন পরীকে দেখতে পারবেন দর্শকরা। পাশাপাশি এতে কাজ করেছে অর্ধশত শিশুশিল্পী। তাদের সঙ্গে এভাবে কাজ করাটাও আমার জন্য একেবারে নতুন অভিজ্ঞতা।’

জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ মুহাম্মদ জাফর ইকবালের ‘রাতুলের রাত রাতুলে দিন’ উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি হয়েছে শিশুতোষ সিনেমা ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’। যার অন্যতম দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিয়াম ও পরী। সিনেমাটি এখন মুক্তির অপেক্ষায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *