অবসরে যাচ্ছেন স্বর্ণপদকজয়ী ইদুর; ৫বছরের ক্যারিয়ারে বাচিয়েছেন ৩০হাজার মানুষ!

মাইন শনাক্ত করে অসংখ্য মানু’ষের জীবন বাঁচিয়ে দেওয়া আলোচিত এক ইঁদুরের নাম ‘মাগাওয়া’। দীর্ঘ ৫ বছর ধরে কম্বো’ডিয়ায় মা’ইন শনাক্তের কাজে নিযুক্ত এই ইঁদুর। এবার অবসরে যাচ্ছে বলে এক প্রতি’বেদনে জানিয়েছে বিবিসি। ১.২ কেজি ওজন এবং লম্বায় ৭০ সেন্টিমিটা’রের। বড় আকৃতির এই আফ্রি;কান ইঁদুরটি…. …..

বর্তমানে বয়সের ভারে ধীর;গতির হয়ে পড়ায় অবসরে পাঠানো হচ্ছে। কম্বোডিয়ায় মা’ইন সরানোর কাজে যুক্ত কম্বোডিয়ান। মা’ইন অ্যাকশন সেন্টারের (সিএমএসি) অধীনে কর্মরত ছিল মাগাওয়া।

পাঁচ বছরে ৭১টি মাইন এবং অনেক বি’স্ফোরক দ্রব্য শনাক্ত করে অসংখ্য মানুষের প্রাণ বাঁচিয়েছে এ ইঁদুর। কম্বোডিয়ায় আনু’মানিক ৬০ লাখ মাইন পুঁতে রাখা আছে বলে ধারণা করা হয়ে থাকে।

এসব মাইন শনাক্তের কাজে আফ্রিকা থেকে নিয়ে আসা হয় প্রশিক্ষণ*প্রাপ্ত একদল ইঁদুর। এদের মধ্যে কাজে সবচেয়ে দক্ষতা দেখায় মাগাওয়া। এজন্য গত বছর মাগাওয়া পিডিএসএ স্বর্ণপদকও অর্জন করে। প্রাণীদের সাহসী কর্মকান্ডের জন্য এ স্বর্ণপদক দেওয়া হয়।

মাইন শনাক্তে প্রশিক্ষণ*প্রাপ্ত ইঁদুর সিএমএসিকে সরবরাহ করে আফ্রিকান প্রতিষ্ঠান অ্যাপোপো। প্রতিষ্ঠান-টির কর্মকর্তা*দের মতে, টেনিস খেলার একটি মাঠের সমান কোনো জায়গায় মাইন আছে কি না, তা মেটাল ডিটে’ক্টর দিয়ে খুঁজে বের করতে কোনো মানুষের এক থেকে চার দিন লাগে।

অথচ এই কাজটি মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যে করতে পারে মাগাওয়া। আলোচিত এই ইঁদুরের কাজের জায়;গায় যুক্ত হচ্ছে অপেক্ষা’কৃত কম বয়সি ইঁদুর। তবে অবসরে গেলেও নতুন ইঁদুর’গুলোর ‘উপদেষ্টা’ হিসেবে আরও কিছুদিন কাজ করবে সাত বছর বয়সি মাগাওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *