লকডাউনে অলি-গলির চা ও পানের দোকান নিয়ে সিদ্ধান্ত

লকডাউনে মানুষের বেপরোয়া চলাচলের কারণে দেশে করোয়া সংক্রমণ বাড়ছে। করোনাভাইরাসের মৃ’ত্যু থাবা থেকে র’ক্ষা পাচ্ছে না কেহই। কিছু মানুষের

স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলা দিন দিন আরও ভ’য়ং’কর হচ্ছে করোনা। এতে বাড়ছে সংক্রমন ও মৃ’ত্যু ঝুকি। এখনই যদি করোনার লাগাম ধরে না রাখা যায় তবে ভবিষ্যতে দেশটি বড় বিপর্যয়ের মুখোমুখি হবে বলে

জানিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেছেন, এই সময়ে বন্ধ থাকবে সব ধরনের যন্ত্রচালিত যানবাহন, শপিংমল ও মার্কেট।

সেই সঙ্গে মহল্লা ও অলি-গলির চা ও পানের দোকানও বন্ধ থাকবে। আজ বুধবার (৩০ জুন) সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। ডিএমপি কমিশনার বলেন, লকডাউনে যৌক্তিক কারণ ছাড়া বাইরে বের হলেই গ্রেফতার করা হবে।

এর আগে কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে সারাদেশে সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। বৃহস্পতিবার ভোর ৬ টা থেকে শুরু হচ্ছে এই লকডাউন। ৭ দিনের এই লকডাউনে

কেউ বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বাইরে বের হলেই কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। বুধবার সকালে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এতে সরকারি,

আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। কঠোর এই বিধিনিষেধ বাস্তবায়ন করতে পুলিশ-বিজিবির সঙ্গে মাঠে থাকবে সেনাবাহিনীও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *