অপু ভাই: নরসুন্দর থেকে টিকটকার, অতঃপর অভিনেতা

রঙ করা চুল আর বিভিন্ন সংলাপ বলে নেটিজেনদের হাসির খোরাক জুগিয়েছেন অপু। টিকটকে তিনি ‘অপু ভাই’ নামেই পরিচিত। তবে গ্রামের মানুষ তাকে চেনে ইয়াসিন নামে।

টিকটক ভিডিও বানানোকে ঘিরে একটি মা.রামা.রির ঘট.নায় ঢাকার উত্তরায় পুলিশের হাতে গ্রে.প্তার হলে এলাকাবাসী তাদের ইয়াসিনকে নতুনভাবে ‘অপু’ নামে জানে।

ইয়াসিন আরাফাত অপুর বাড়ি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নে। ছোটবেলায় বাবা-মায়ের বিচ্ছেদের পর সোনাইমুড়ি পৌরসভার কৌশল্যারবাগ গ্রামে নানার বাড়িতে বড় হয় সে। সেখানে কৌশল্যারবাগ তালিমুল কোরআন নূরানী কাওমি মাদ্রাসায় ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করেন। অ.ভাব-অন.টনের কারণে বেশিদূর পড়ালেখা করতে পারেনি অপু।

মোবাইল ও টিভি মেকানিকের কাজ শিখে কিছুদিন সার্ভিসিংয়ের কাজ করেন। এরপর সোনাইমুড়ি বাজার ও জেলা শহরের বিভিন্ন সেলুনে কাজ শুরু করেন অপু। সেলুনে খুব ভালো কাজ করতো সে। কিন্তু সেলুনে কাজ করার সময় টিকটক, লাইকিতে আস.ক্ত হওয়ার পর সে কাজে উদা.সীন হয়ে পড়ে। টিকটক, লাইকি কর্তৃপক্ষ আরো সুন্দরভাবে ভিডিও বানানোর জন্য তাকে ফ্ল্যাশ লাইটসহ বিভিন্ন কিছু গিফট করে।

অপু এলাকায় দল বেঁধে ঘুরে এবং মোবাইলে ভিডিও বানানো শুরু করে। আশেপাশের বিভিন্ন গ্রাম থেকেও কিশোর-তরুণরা তার সঙ্গে ভিডিও বানাতে আসে। অপুর সঙ্গে ভিডিও বানাতে ঢাকা থেকে গাড়ি রিজার্ভ করেও অনেক তরুণ তার গ্রামে যেতো।

একপর্যায়ে অন্যান্য টিকটকারদের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন অপু। অন্য এলাকার কয়েকটি টিকটক গ্রুপ তাকে কয়েক দফা মারধরের চেষ্টা করে। কারণ অপুর মতো টিকটক সেলিব্রেটিকে মারধরের ভিডিও আপলোড করলে দ্রুত ভাইরাল হবে।

গ্রামের গ.ণ্ডি পেরিয়ে ঢাকায় এসেও নিজের জনপ্রিয়তা ধরে রাখেন অপু ভাই। চুলের কালার এবং বিভিন্ন সংলাপ তাকে আলোচনার তুঙ্গে রাখে। কিন্তু একের পর এক মারামারির ঘটনায় বিতর্কিত হয়ে পড়েন তিনি।

শেষ পর্যন্ত হা.জতবাসও করতে হয়। জামিনে মু.ক্তি পাওয়ার পর থেকেই আমূল পরিবর্তন ঘটে তার। নিজেকে শুধরে নিতে শুরু করেন তিনি। ফিরে এসে ইউটিউবে নিয়মিত হন।

এসবকে ছাপিয়ে দেশের শীর্ষ নির্মা.তাদের একজন আদনান আল রাজীবের ওয়েব ফিল্মে অভিনয় করেন অপু। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া বিতর্কিত কিছু বিষয় নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘ইউটিউমার’। প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী সেই ওয়েব ফিল্মে মূল দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন জিয়াউল হক পলাশ ও সংগীত তারকা প্রীতম হাসান। এছাড়াও ছিলেন শরাফ আহমেদ জীবন, তৌহিদ আফ্রিদি, সালমান মুক্তাদির, তাহসিনেশন, গাউসুল আলম শাওনসহ অনেকেই।

তারই ধারাবাহিকতায় এবার দেশের জনপ্রিয় নির্মাতা অনন্য মামুনের পরিচালনায় ‘সিনিয়র ভার্সেস জুনিয়র’ নামে একটি ওয়েব সিরিজে কাজ করতে যাচ্ছেন অপু ভাই। এতে তার চরিত্রের নাম আলিয়ান। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী সেপ্টেম্বরের ২০ তারিখ থেকে ওয়েব সিরিজটির দৃশ্যধারণ শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *