দেড় কোটি টাকার স্কুল ভবনটি ৪০ হাজারে বিক্রি

মেঘনার অব্যাহত ভাঙনের ফলে মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ভোলার দৌলতখান উপজে’লার হাজিপুর ইউনিয়নটি। মধ্যমেঘনায় অবস্থিত

এ ইউনিয়নের সর্বশেষ স্থাপনা ৫০নং মধ্য হাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তিনতলা পাকা ভবনটিও মেঘনার পেটে বিলীন হতে চলেছে। ভাঙন স্প’র্শ করেছে ভবনের ভিত।

যেকোনও সময় ধসে পড়ে নদীতে তলিয়ে যেতে পারে। এ অবস্থায় মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) উপজে’লা শিক্ষা অফিস তড়িঘড়ি করে উন্মুক্ত নিলাম ডেকে এক কোটি ৩৭ লাখ টাকায় নির্মিত ভবনটি মাত্র ৪০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়।

২০২০ সালে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ইলি কনস্ট্রাকশন উপজে’লা এলজিইডির অর্থায়নে ভবনটি নির্মাণ করে। এক বছর না যেতেই ভবনটি নদীগর্ভে বিলীন হতে যাওয়া ভবনটি আগে কেন বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়নি?

জবাবে উপজে’লা শিক্ষা কর্মক’র্তা মোহাম্ম’দ হোসেন বলেন, ‘প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি যথা সময়ে নদীর ভাঙনের তীব্রতার বিষয়ে জানাননি। ফলে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে ভবনটি নিলামে বিক্রির ব্যবস্থা করা যায়নি।’

এ বিষয়ে জানতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গো’লাম রহমানের মোবাইল নম্বরে কল করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।বৃহস্পতিবার (০২ সেপ্টেম্বর) উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিয়ে ওই চরে গিয়ে দেখা যায়,

আশ্রয়ণ প্রকল্পের সাতটি গুচ্ছগ্রামের ৪২০টি সরকারি ঘর ও ব্যক্তি পর্যায়ের আরও চার শতাধিক ঘরের কোনও চিহ্নই নেই। মেঘনার ভাঙনে আট শতাধিক পরিবারের আবাসস্থল নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। এখন ওই চরে শুধু বিদ্যালয় ভবনটিই কোনোরকমে দাঁড়িয়ে আছে। তবে নিলামে নেওয়া ব্যক্তির নিয়োজিত শ্রমিকরা পি’টিয়ে ভবনটি ভাঙার কাজ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *