সরকারি জমি বন্ধক রেখে প্রায় দেড়শ কোটি টাকা ঋণ

সরকারি জমি ব্যাংকের কাছে বন্ধক রেখে প্রায় দেড়শ কোটি টাকা ঋণ তুলে নিয়েছে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। জমির মালিক পানি উন্নয়ন বোর্ড। অথচ জালিয়াতির মাধ্যমে এই জমি ব্যক্তিমালিকানায় কেনাবেচাও করা হয়।

এমনকি চক্রটি নামজারি করে নিতেও সক্ষম হয়। দুটি ব্যাংকে এই জমি বন্ধক রেখে অ্যাগ্রো ইনডেক্স নামে ঢাকার একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বিপুল অঙ্কের ঋণ তুলে নেয়।

এক বছরের অনুসন্ধান শেষে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসার পর নড়েচড়ে বসে পানি উন্নয়ন বোর্ড। শুরু হয় তদন্ত। ধরা পড়ে সব জাল-জালিয়াতির কারবার। চিহ্নিত হয় দোষীরা। কিন্তু এখন পর্যন্ত এই জমি উদ্ধার এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

অভিযোগ রয়েছে, ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠানের পেছনে প্রভাবশালী মহলের সমর্থন থাকায় প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না। বরং যারা পদক্ষেপ নেওয়ার চেষ্টা করছেন, তাদেরকে নানাভাবে হয়রানি করা হচ্ছে।

জমিটির অবস্থান পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার আলীপুরে। উপকূলীয় এলাকায় প্রাকৃতিক জলোচ্ছ্বাসে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) এই জমি সংরক্ষণ করে।

১৯৬৩ সালে এই জমি অধিগ্রহণ করা হয়। সর্বশেষ মাঠ জরিপেও জমিটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের নামে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। অথচ এখানকার প্রায় ৩ একর সরকারি জমি সাবরেজিস্ট্রি অফিসে বেচাকেনা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *