স্বর্ণের দাম ভরিতে ১০ হাজার টাকা কমল

ধারাবাহিকভাবে কমতে শুরু করেছে স্বর্ণের দাম। মাঝে দু-এক দিন দাম বাড়লেও সেপ্টেম্বর মাসে দাম কমার প্রবণতা বেশি। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ভারতে স্বর্ণের দাম সর্বোচ্চ দামের চেয়ে প্রায় ১০ হাজার টাকা কমেছে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত বছরে একদিন প্রতি ১০ গ্রাম ২৪ ক্যারেট স্বর্ণের দাম উঠেছিল ৫৭ হাজার টাকার উপরে। সোমবার সেই দাম হয়েছে, ৪৮ হাজার ৪৫০ টাকা। তবে এই কমতে থাকার গতি খুব তাড়াতাড়ি থেমে যেতে পারে। তাই বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এখনই স্বর্ণের বাজারে বিনিয়োগ করার উপযুক্ত সময়।

শুধু স্বর্ণ নয়, সম্প্রতি রুপার দামও কমার ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে ভারতের বাজারে। তবে সোমবার রুপার দাম অল্প বেড়েছে। এদিন কলকাতায় এক কেজি রুপার দাম ছিল ৬০ হাজার ২৫০ টাকা।

সোমবার কলকাতায় ১০ গ্রাম ২৪ ক্যারেট স্বর্ণের দাম ১৫০ টাকা কমে হয়েছে ৪৮ হাজার ৪৫০ টাকা। আর গয়নার স্বর্ণের (২২ ক্যারেট) ১০ গ্রামের দাম হয়েছে ৪৫ হাজার ৭৫০ টাকা।

গত সপ্তাহে ২২ ক্যারেট স্বর্ণের ১০ গ্রামের দাম ছিল ৪৫ হাজার ৫৫০ টাকা। একই পরিমাণ ২৪ ক্যারেট স্বর্ণের দাম ছিল ৪৮ হাজার ২৫০ টাকা। মাঝে ২২ সেপ্টেম্বর দুই ধরনের স্বর্ণের দামই ১০ গ্রাম প্রতি ৬৫০ টাকা করে বেড়েছিল।

কয়েক মাস আগে পর্যন্তও স্বর্ণের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল ভারতে। দেশটির বিভিন্ন শহরে প্রতি ১০ গ্রাম স্বর্ণের দাম ছিল ৫০ হাজার টাকার উপরে। করোনাকালে সেই মূল্য বৃদ্ধিতে ব্যবসায়ীরা তেমন লাভ করতে পারিন।

এর কারণ হলো গয়না বা ধাতব স্বর্ণ নয়, লগ্নিপণ্য হিসেবে চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম বেড়ে গিয়েছিল। ফলে ক্রেতাদের চাপও বেড়েছিল। এখন উৎসবের মৌসুম এগিয়ে আসায় খুচরা বিক্রেতাদের কাছে স্বর্ণের চাহিদা বাড়ছে। কারণ সর্বোচ দামের তুলনায় এখন ১২ শতাংশের বেশি নিচে।

সেই সঙ্গে ক্রেতাদেরও স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে। খুচরা বিক্রেতারা উৎসবের মৌসুমের আগে স্বর্ণ মজুত করার কথা ভাবছেন। এর ফলে স্বর্ণের চাহিদা ও আমদানি বাড়ছে। আর তাতেই নিম্নমুখী স্বর্ণের দাম। তবে উৎসবের সময়ে চাহিদা খুব বেশি তৈরি হলে দাম আবারো ঊর্ধ্বমুখী হতে পারে। সেই কারণে বাজার বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এটাই স্বর্ণ কেনার উপযুক্ত সময়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *