ছয় দফা দাবিতে রাতে কর্মবিরতিতে নামছেন রাইড শেয়ারের চালকরা

পুলিশের হয়রানি বন্ধ, অ্যাপ কোম্পানির কমিশন ভাড়ার ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ ভাগ নির্ধারণসহ ছয় দফা দাবিতে সোমবার দিবাগত রাত ১২টা এক

মিনিট থেকে ২৪ ঘণ্টা কর্মবিরতি পালনের ডাক দিয়েছেন রাইড শেয়ারের চালকরা। দাবির পক্ষে মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করবেন তারা।

‘অ্যাপ বেইজড ড্রাইভারস ইউনিয়ন অব বাংলাদেশ’ এর ব্যানারে এসব কর্মসূচি আহ্বান করা হয়েছে। গত ১৪ সেপ্টেম্বর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কর্মসূচি

ঘোষণা করা হলেও সোমবার তা আলোচনায় আসে এক চালক পুলিশের মামলায় বিরক্ত হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিলে। আগুনের ভাইরাল ভিডিও সোমবার দিনভর আলোচনায় ছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ বলেছেন, শুধু বাংলাদেশে নয় ৩৫ দেশে একযোগে এই কর্মসূচি পালিত হবে। তাদের কর্মসূচি আগেই ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবারের আগুনের ঘটনা না ঘটলেও চালকরা ২৮ সেপ্টেম্বর কর্মবিরতি পালন করতেন।

বেলাল আহমেদ জানান, ‘উবারসহ কয়েকটি অ্যাপে মাত্রাতিরিক্ত কমিশন নেওয়া হয়। চালক রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে ১০০ টাকা আয় করলে অ্যাপ কোম্পানি ২৫ টাকা কমিশন নিয়ে নেয়। অ্যাপে চলা গাড়িকে যাত্রী পেতে রাস্তায় দাঁড়াতেই হয়। কিন্তু ঢাকার রাস্তায় পার্কিংয়ের জায়গা নেই। পার্কিংয়ের কারণে অ্যাপে চলা গাড়ি, মোটরসাইকেলকে প্রতিদিন মামলা ও জরিমানার বোঝা বইতে হয়। পার্কিংয়ের জন্য জায়গা দিতে হবে।

ইউনিয়নের তিন দাবি হলো, অ্যাপের গাড়ির চালকদের শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি দিতে হবে। রাইড শেয়ারিংয়ের গাড়িতে আগাম আয়কর নেওয়া বন্ধ করতে হবে। গত দুই অর্থবছরে নেওয়া আগাম আয়করের টাকা ফেরত দিতে হবে।

একাধিক চালক বলেছেন, করোনাকালে হাজারও শিক্ষিত যুবক অ্যাপে গাড়ি ও মোটরসাইকেল চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছে। কিন্তু পথে প্রতিমুহূর্তে তাদের পুলিশের হাতে লাঞ্ছিত হতে হয়। সামান্য কারণে পুলিশ চড় থাপ্পড় মারে চালকদের। কাগজ যাচাইয়ের নামে পুলিশ তাদের আটকে টাকা আদায় করে। কাগজে ত্রুটি না থাকলেও অবৈধ পার্কিং, লেন ভঙের অপরাধ দেখিয়ে মামলা দেয়। পুলিশের চাঁদা ও মামলার জরিমানা দিতে চালকের আয় শেষ হয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *