দায়িত্ব গ্রহণের পর যা বললেন নতুন সেনাপ্রধান

নতুন সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। আগামী তিন বছর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে নেতৃত্ব দেবেন তিনি। বুধবার (২৪ জুন) তিনি এই দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

দেশের ১৭তম সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিলেন জেনারেল শফিউদ্দিন । বৃহস্পতিবার সকালে সামরিক রীতিতে জেনারেল আজিজ আহমেদকে বিদায় জানানোর মধ্যদিয়ে নবনিযুক্ত সেনাপ্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে বরণ করা হয় সেনাসদরে।

সকাল ৯টায় শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান বিদায়ী সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে তাকে জেনারেল র‌্যাংক ব্যাজ পরানো হয়। নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল এম

শাহীন ইকবাল ও বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান নতুন সেনাপ্রধানকে জেনারেল র‌্যাংক ব্যাজ পরিয়ে দেন।সেনাসদরে সেনাবাহিনী প্রধানের সচিবালয়ে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান জেনারেল আজিজ আহমেদ ছাড়াও ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তারা।

সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন সেনাপ্রধানকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন বিদায়ী সেনাপ্রধান। এ সময় সামরিক রীতিতে গাড়িতে দড়ি বেঁধে কর্মকর্তারা বিদায় জানান জেনারেল আজিজ আহমেদকে।তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় নতুন সেনাপ্রধান বলেন, মুজিব শতবর্ষে সেনাপ্রধানের দায়িত্ব পাওয়া

তার জন্য তাৎপর্যপূর্ণ বিষয়। এই শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে যোগ্য করে গড়ে তোলার প্রত্যয় জানিয়ে জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আগামীতে জনগণ ও সেনাবাহিনীর মধ্যে কোনো দূরত্ব থাকবে না।
উল্লেখ্য, গত ১০ জুন বৃহস্পতিবার সেনাপ্রধান হিসেবে লেফটেন্যান্ট জেনারেল

এসএম শফিউদ্দিন আহমেদকে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছিল। লেফটেন্যান্ট জেনারেল এসএম শফিউদ্দিন আহমেদকে আজ থেকে জেনারেল পদে পদোন্নতি দিয়ে তিন বছরের জন্য সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তিনি সেনাবাহিনীর কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল পদে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। জেনারেল আজিজ আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হলেন এসএম শফিউদ্দিন আহমেদ।

খুলনার একটি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান এসএম শফিউদ্দিন আহমেদ ১৯৮৩ সালের ২৩ ডিসেম্বর নবম বিএমএ লংকোর্সের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর পদাতিক কোরে কমিশন পান।

গত বছর ডিসেম্বরে তাকে আর্মি ট্রেনিং অ্যান্ড ডকট্রিন কমান্ডের (অ্যার্টডক) জিওসির দায়িত্ব থেকে কিউএমজি করে সেনা সদরে নিয়ে আসা হয়। এর আগে ২০১৯ সালের আগস্টে মেজর জেনারেল থেকে পদোন্নতি পেয়ে লেফটেন্যান্ট জেনারেল হন শফিউদ্দিন আহমেদ। পরে তাকে অ্যার্টডকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। দীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি লজিস্টিকস এরিয়া, পদাতিক ব্যাটালিয়ন, পদাতিক ব্রিগেডসহ বিভিন্ন পর্যায়ে নেতৃত্বের ভ‚মিকায় দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের (বিআইআইএসএস) মহাপরিচালক এবং ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের সিনিয়র ডাইরেক্টিং স্টাফ হিসেবেও তিনি কাজ করেছেন। সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী মিশনের ডেপুটি ফোর্স কমান্ডারের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বও পালন করেছেন শফিউদ্দিন আহমেদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *