৫২ কোটি টাকার ভলভো বাস ৫০ লাখে বিক্রি করে বিআরটিসি

টাকায় টাকা আনে বাক্যটি সর্বক্ষেত্রেই প্রয়োজ্য নয়। ২০০৪ সালে ৫২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫০টি দোতলা সুইডিশ ভলভো বাস নিয়ে আসে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন (বিআরটিসি)।

অযত্ন আর অবহেলায় আয়ুষ্কালের আগেই বাসগুলো বিকল হয়ে যায়। পরে ৫২ কোটি টাকায় কেনা ৫০টি বাস মাত্র ৫০ লাখ টাকায় বিক্রি করে সংস্থাটি। তবে ফের নতুন করে ৬০০ কোটি টাকা ব্যয়ে কোরিয়ান ৩২০টি এসি বাস কেনার উদ্যোগ নিয়েছে বিআরটিসি।

জানা গেছে, সুইডেন থেকে ১৭ বছর আগে কেনা ৫০টি ভলভো বাস ভাঙারি হিসেবে বেঁচে দেওয়া হয়েছে। সুইডিশ প্রতিষ্ঠানটির হিসেবে টানা ১২ বছর সেবা দেওয়ার কথা থাকলেও বিআরটিসির দাবি ওই বাসগুলো রাস্তায় ৭-৮ বছর চলেছে।

একে একে বাসের যন্ত্রাংশগুলো অকেজো হতে শুরু করলে তা মেরামতের উদ্যোগও নিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু দেশে ভলভোর যন্ত্রাংশ দুষ্প্রাপ্য হওয়ায় সেই প্রচেষ্টা ভেস্তে যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সুইডেন থেকে নিয়ে আসা বাসগুলোর যন্ত্রাংশের কারণে দীর্ঘদিন পড়ে থাকায় বাসের রং মুছে গেছে, ইঞ্জিন নষ্ট, কোনোটির গিয়ার বক্স নেই, সামনের অংশ ভেঙেছে। কোনোটিতে ধুলাবালু-ময়লা পড়ে ক্ষয় স্থায়ী হয়েছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের(বিআরটিসি) চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, বাস কেনার আগের প্রকল্পগুলোতে ১০ শতাংশ যন্ত্রাংশের সংস্থান ছিল।

তবে নতুন প্রকল্পে ৩০ শতাংশ যন্ত্রাংশের সংস্থান রাখা হয়েছে।পূর্ব অভিজ্ঞতার আলোকেই এ সিদ্ধান্ত। পার্টসের ব্যবস্থা বেশি রাখছি, যাতে বাসগুলো ২০ থেকে ২২ বছর সেবা দিতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *