পদ্মা সেতুর রেললাইনের নকশায় ভু’ল থাকায় ভাঙতে হচ্ছে পিলার!

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কাজ একদম শেষের দিকে। মূ’ল সেতুর কাজ প্রায় শতভাগ হয়ে গেছে। দ্বিতল সেতুটির ও’পরে থাকবে গাড়ি আর নিচ দিয়ে ছুটবে ট্রেন।

রেললাইনের কাজ যখন সমা’প্ত ির পথে, তখন সেখানে ধ’রা পড়েছে মা’রাত্মক ত্রুটি। সেই ত্রুটি ঠিক করার জন্য ভাঙতে হচ্ছে সেতুর বাইরের উড়ালপথের একটি পিলার (ভায়াডাক্ট)।

এমন ত্রুটির জন্য প’রস্পরকে দোষারোপ করে সেতু ক’র্তৃপক্ষ ও রেলওয়ে বিভাগ। এমনকি এই জটিলতা প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় পর্যন্ত পৌঁছায়। এরপর বিশেষজ্ঞদের মতামতের ভিত্তিতে সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজে বের করা হয়।

যেখানে সংযোগ সড়কের ও’পর দিয়ে রেলপথটি অ’তিক্রম করেছে, সেখানে প্রয়োজনীয় উচ্চতার ঘাটতি রয়েছে। তাতে করে যান চলাচল বিঘ্নিত ‘হতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লি’ষ্ট প্রকৌশলীরা।

দুই প্রান্তে উড়ালপথের মাধ্যমে মূ’ল সেতুকে মাটির স’ঙ্গে যু’ক্ত করা হচ্ছে। মা’ওয়া প্রান্তে উড়ালপথের (ভায়াডাক্ট-২) পিয়ার নম্বর ১৩ থেকে ১৬ পর্যন্ত মূ’ল নকশায়

তিনটি স্প্যান ছিল ৩৮ মিটার করে। সেখানে গার্ডারের ধরন ছিল প্রিকাস্ট বক্স। তাতে তৈরি হয় জটিলতার। এতে উড়ালপথের একটি পিলার ভে’ঙে ত্রুটি ঠিক করতে হবে।

বাংলাদেশের অন্যতম বড় প্রকল্প পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে। প্রথমে এর কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ৪ বছরের মধ্যে। তারপরের টার্গেট ঠিক করা হয়েছিল ২০২০ সাল।

পরে সেটা বাড়িয়ে নেওয়া হয় ২০২১ সালের জুন মাসে। এরপর অর্থমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, ২০২২ সালের জুন মাস নাগাদ শেষ হবে পদ্মা সেতুর সম্পূর্ণ কাজ। সেতুমন্ত্রীও কিছুদিন আগে িএকই সময়ের কথা বলেছেন।

দুই প্রান্তে উড়ালপথের মাধ্যমে মূ’ল সেতুকে মাটির স’ঙ্গে যু’ক্ত করা হচ্ছে। মা’ওয়া প্রান্তে উড়ালপথের (ভায়াডাক্ট-২) পিয়ার নম্বর ১৩ থেকে ১৬ পর্যন্ত মূ’ল নকশায় তিনটি স্প্যান ছিল ৩৮ মিটার করে। সেখানে গার্ডারের ধরন ছিল প্রিকাস্ট বক্স। তাতে তৈরি হয় জটিলতার। এতে উড়ালপথের একটি পিলার ভে’ঙে ত্রুটি ঠিক করতে হবে।

বাংলাদেশের অন্যতম বড় প্রকল্প পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে। প্রথমে এর কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ৪ বছরের মধ্যে। তারপরের টার্গেট ঠিক করা হয়েছিল ২০২০ সাল।

পরে সেটা বাড়িয়ে নেওয়া হয় ২০২১ সালের জুন মাসে। এরপর অর্থমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, ২০২২ সালের জুন মাস নাগাদ শেষ হবে পদ্মা সেতুর সম্পূর্ণ কাজ। সেতুমন্ত্রীও কিছুদিন আগে িএকই সময়ের কথা বলেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *