যে কারণে নাম পরিবর্তন করল ফেসবুক

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের কর্পোরেট কোম্পানির নাম পরিবর্তন করা হয়েছে, নতুন নাম রাখা হয়েছে ‘মেটা’।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) রাতে নতুন এই নাম ঘোষণা করেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ।

এখন থেকে এই নামে সব ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করবে কোম্পানিটি। মূলত ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম- এই মাধ্যমগুলোর মাদার

কোম্পানি হিসেবে আগে যেমন ফেসবুক নামটি ব্যবহৃত হতো- এর বদলে নতুন নাম হতে যাচ্ছে ‘মেটা’। তবে আমরা ফেসবুক হিসেবে যে মাধ্যমটিকে ব্যবহার করছি তার নাম অপরিবর্তিতই থাকবে।

নতুন এই নামের মাধ্যমে মূলত ‘মেটাভার্স’ নামে একটি অনলাইন দুনিয়া তৈরির পরিকল্পনা উন্মোচন করেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির প্রতিষ্ঠাতা জাকারবার্গ। যেখানে মানুষ ভার্চুয়াল পরিবেশে ভিআর হেডসেট ব্যবহার করে বিভিন্ন কাজ করার পাশাপাশি, গেইম খেলা এবং যোগাযোগ করতে পারবে।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা যা করছি এবং ভবিষ্যতে করব, সেগুলোকে বর্তমান ব্র্যান্ডটি সম্ভবত উপস্থাপন করতে পারছে না। তাই পরিবর্তন দরকার।’

এক ভার্চুয়াল কনফারেন্সে জাকারবার্গ বলেন, ‘আমি আশা করি, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমাদের মেটাভার্স কোম্পানি হিসাবে দেখা হবে। আর আমরা সামনে যা তৈরি করতে যাচ্ছি, সেটার ওপর ভিত্তি করেই আমাদের কাজ ও পরিচয় গড়ে উঠবে।’

তিনি বলেন, ‘বিদ্যমান এই ব্যবসাকে আমরা দুইটি ভিন্ন অংশ হিসেবে দেখছি। একটি আমাদের অ্যাপস ব্যবহারকারীদের জন্য এবং আরেকটি অংশ ভবিষ্যতের প্ল্যাটফর্মে কাজ করার জন্য।’

নাম পরিবর্তনের পর আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যম জানায়, মূল প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করা হলেও ফেসবুক অ্যাপের নাম বদলাচ্ছে না। নতুন যে নামে সংস্থাটি আত্মপ্রকাশ করছে তার অধীনে একটি অ্যাপের নাম হয়ে থাকবে ফেসবুক।

কোম্পানিটির কর্মকর্তারা বলছেন, ফেসবুক ইনকরপোরেশনের আওতায় বর্তমানে ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপের মতো একাধিক প্ল্যাটফর্ম রয়েছে, তাই মূল প্রতিষ্ঠানের নাম ফেসবুক হওয়া বাঞ্ছনীয় নয়। এ জন্য মূল প্রতিষ্ঠানের নামটি পরিবর্তন করা হয়েছে। অনেকটা গুগলের মতো। মূল সংস্থার নাম হিসেবে রয়েছে গুগল আলফাবেট, সেভাবেই নাম বদলাল ফেসবুক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *