যে কারনে ছেলের লাশ দাফনের পরের দিন থেকে আজ অবধি ঘরের বাইরে বের হননি আবরারের মা!

আবরারকে যে নি’র্মম ও নিষ্ঠুরভাবে হ’ত্যা করা হয়েছে, ঘটনার দুই বছর পরও মা রোকেয়া খাতুন সেই স্মৃ’তি ভুলতে পারেননি। ছেলে হারানোর পর থেকে কান্নাই যেন এখনও তার নিত্যসঙ্গী।

আবরারের লা’শ দা’ফনের দিন ছেলের মুখটি শেষবার দেখার জন্যে সেই যে ঘরের বাইরে এসেছিলেন, এরপর থেকে তিনি আর ঘরের বাইরে যাননি। ঘরেই বসে থাকেন সবসময়। শুধু নামাজ কালাম আর আবরারের স্মৃ’তি নিয়েই সময় কাটছে মমতাময়ী মায়ের।

কু’ষ্টিয়া শহরের বাড়িতে আবরারের মা রোকেয়া খাতুনের সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের। তিনি বলেন, যে যাব’ার সে তো তার সহপাঠীদের নি’র্মম নি’র্যা’তনে পৃথিবী থেকে চলে গেছে।

কিন্তু কী কারণে চলে গেলো! কাদের কারণে চলে যেতে হলো? যাদের নি’র্যা’তনে আমা’র ছেলে চলে গেলো, তাদের সকলের দৃ’ষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

আমর’া সকল আ’সামির সর্বোচ্চ শা’স্তি মৃ’ত্যুদ’ণ্ড চাই। আ’দালতের ওপর আমা’দের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমর’া আশা করি এই রায়ের মধ্যে দিয়ে সকলের কাছে একটা বার্তা যাব’ে। যাতে করে আর ভবি’ষ্যতে কেউ কোনো মায়ের বুক খালি করার চে’ষ্টা না করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.