বদবায়ু বিক্রি করে সপ্তাহে আয় ৪৩ লাখ টাকা!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক রিয়েলিটি টিভি তারকা অদ্ভুত এক তথ্য প্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন যে,

তিনি এক সপ্তাহে ৫০ হাজার মার্কিন ডলার বা প্রায় ৪৩ লাখ টাকা আয় করেছেন তার পেট থেকে বের হওয়া ‘বদবায়ু’ বিক্রি করে।

ল্যাডবাইবেল নামের একটি ম্যাগাজিনের রিপোর্ট অনুসারে, টিভি তারকা স্টেফানি ম্যাটো এক টিকটক ভিডিওতে তার এই তথ্য প্রকাশ করেছেন।

তার ভক্তের সংখ্যা এক নতুন উচ্চতায় পৌঁছে যাওয়ার পরে তিনি একটি পেশাদার ফার্টিং গেম বা বাতকর্মের গেম শুরু করেছিলেন।

মিসেস ম্যাটো টিভি শো ‘নাইনটি ডে ফিয়ান্সে’তে কাজ করার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।

এটি এমন একটি ডকুমেন্টারি সিরিজ যার মধ্যে বিভিন্ন দেশের দম্পতিরা তাদের সম্পর্ক এবং মার্কিন আইনি ব্যবস্থা সম্পর্কে তুলে ধরেন।

মিসেস ম্যাটো একটি কাচের বয়ামে তার ‘বদবায়ু’ বোতলজাত করেন। তারপর প্যাকেজটি তার একজন ভক্তের কাছে পাঠান, যার মূল্য ১০০০ মার্কিন ডলার (প্রায় ৮৫,৭৯৬ টাকা)।

ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিওতে মিসেস ম্যাটো শেয়ার করেছেন, কীভাবে তিনি শক্ত বয়ামে ভরে তার ‘বদবায়ু’ বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করছেন। তিনি তার অনুরাগীদের জিজ্ঞেস করা অন্যান্য প্রশ্নের সঙ্গে বয়ামে কতোক্ষণ তার ‘বদবায়ু’ থাকে সে সম্পর্কেও কথা বলেছেন।

এতেই থেমে নেই। এই তারকা পেট থেকে ‘বদবায়ু’ বের করার জন্য কীভাবে তিনি নিজেকে প্রস্তুত করেন তারও বর্ণনা দিয়েছেন। অন্য একটি ভিডিওতে মিসেস ম্যাটো তার সকালের নাশতা সম্পর্কেও কথা বলেছেন, যার মধ্যে রয়েছে- মটরশুটি, একটি প্রোটিন মাফিন, শক্ত সেদ্ধ ডিম, একটি প্রোটিন শেক এবং কিছু দই।

সম্প্রতি মিসেস ম্যাটো তার ‘বদবায়ু’র জারে আরেকটি উপাদান যোগ করা শুরু করেছেন- ফুলের পাপড়ি। তিনি বলেন, আমি ছোট ছোট ফুলের পাপড়ি যোগ করতে পছন্দ করি। আমার মনে হয় তারা আমার বদবায়ুকে ধরে রাখে এবং দীর্ঘস্থায়ী করে। জারটি প্রস্তুত করা শেষে এতে আমি একটি ব্যক্তিগত নোট লিখে দেই।

বাজফিডের সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে মিস ম্যাট্টো বলেছেন, গত কয়েক মাসে আমার নিজের প্রাপ্তবয়স্ক-বান্ধব প্ল্যাটফর্মে কাজ করা আমাকে বিভিন্ন ধরণের পণ্য এবং বাজার সম্পর্কে খুব সচেতন করেছে… কিন্তু সেসব খুব মজাদার, অদ্ভুত এবং ভিন্ন কিছু। এটি প্রায় একটি অভিনব জিনিসের মতো।

পূর্বপশ্চিমবিডি/অ-ভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *