নেচে-গেয়ে গায়ে হলুদের মঞ্চে তিশা

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তাসনুভা তিশা। চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে হঠাৎ করেই নিজের বাগদানের খবর জানান তিনি। পাত্রের নাম সৈয়দ প্রিন্স আসকার, একটি এজেন্সিতে কর্মরত। গত ১৫ জানুয়ারি বাগদান সম্পন্ন হলেও তারা বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন আগামী ২ ফেব্রুয়ারি। এসময় শুধু দুই পরিবারের সদস্যরা এবং কাছের কিছু মানুষজন উপস্থিত থাকবেন। এরপর দেশের পরিস্থিতি ঠিকঠাক থাকলে চলতি মাসের শেষের দিকে বড় করে বিবাহ সংবর্ধনা অনুষ্ঠান করার ইচ্ছে রয়েছে।

এদিকে পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী সোমবার (৩১ জানুয়ারি) রাতে অনুষ্ঠিত হয় তিশার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। এই খণ্ডচিত্রটি তিশার গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানের। রাজধানীর বাংলামোটরের একটি অভিজাত রেস্তোরাঁয় বসেছিল তিশার গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানের আসর। এ সময় দুই পরিবারের সদস্য ছাড়াও শোবিজ অঙ্গনের অনেকে উপস্থিত ছিলেন। বাহারি আলো আর ফুলে সজ্জিত রেস্তোঁরা। তাতে একঝাঁক তরুণ-তরুণী একসঙ্গে প্রবেশ করছেন। ব্যাকগ্রাউন্ডে বাজছে মিউজিক। কিছুটা সামনে আসার পর দেখা যায়, হেঁটে আসছেন অভিনেত্রী তাসনুভা তিশা। তার পরনে হলুদ রঙের পোশাক। চোখে-মুখে উচ্ছ্বাসের আভা! তার পাশাপাশি হাঁটছেন অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া, অভিনেতা মনোজ প্রামাণিকসহ আরো অনেকে।

এরই মাঝে তিশাকে উদ্দেশ্য করে কেউ একজন বলেন-‘শুধু রোবটের মতো হেঁটে আসলে চলবে না; নাচতে হবে।’ এরপর হাস্যোজ্জ্বল তিশা গানের সঙ্গে নেচে ও ঠোঁট মিলিয়ে এগিয়ে যান গায়ে হলুদের মঞ্চের দিকে। এর কিছুক্ষণ পর তিশার পাশে এসে বসেন হবু বর সৈয়দ আসকার। তখন মিউজিকের ভলিউম যথেষ্ট বাড়ন্ত; আর এর সঙ্গে শরীর দোলাতে থাকেন আসকার।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসের আসকারের সঙ্গে তার পরিচয়, এরপর দুজন দুজনকে কাছ থেকে দেখা ও জানাশোনা। একটু একটু করে তাদের মধ্যে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্কে থাকার সময়েই দুজন দুজনের পরিবারকে বিষয়টি জানান এবং তারা সম্মতি দিলে তারা বিয়ের জন্য প্রস্তুত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.