আবার ২০০ বছর পর এমন তারিখ দেখতে পারবে বিশ্ববাসী

আজ ২ ফেব্রুয়ারি। আর অন্য দুইটি হলো ২০ এবং ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২২। এ ২২২ সিকোয়েন্সের শেষ হয়েছিল ২০০০,২০০২ এবং ২০২০ সালে।

আবারও আমরা এমন একটি সংখ্যাতত্ত্বের মুখোমুখি হলাম ২০২২ সালে। ২০/২/২০২২ এবং ২২/২/২০২২ তারিখেও আমরা আবার এমন সংখ্যাতত্ত্বে মুখোমুখি হব। এই সংখ্যাতত্ত্বের এমন বিন্যাস ২/২/২২২২ সালের, অর্থাৎ আরও ২০০ বছর পর দেখতে পাওয়া যাবে।

সংখ্যাতত্ত্বে সংখ্যার ২২২ ক্রমকে প্রায়শই অ্যাঞ্জেল নম্বর হিসেবে উল্লেখ করা হয়। কেন এ নম্বরটিকে এত গুরুত্ব দেওয়া হয় সংখ্যাতত্ত্বে! সংখ্যাতত্ত্বে ২ নম্বরটি দ্বৈততা, অংশীদারিত্ব, সম্পর্ক এবং ভারসাম্যের শক্তির প্রতীক হিসেবে ধরা হয়।

২ নম্বরটি সাধারণত আপস, গ্রহণযোগ্যতা, সহানুভূতি, সহযোগিতা এবং সম্প্রীতির চারপাশে কেন্দ্রীভূত হয়। যখন ২ ক্রমানুসারে থাকে এর তাৎপর্য অনেকটা বেড়ে যায়।

যেমন তারিখের ক্ষেত্রে এ সংখ্যাগুলোকে আমরা ক্রমানুসারে দেখতে পাই। তখন ২২২ সিকোয়েন্সে এক ধরনের শক্তি অতিচার্জ হয়। এ সময়টিতে সহানুভূতির সঙ্গে জীবনের কাছে যাওয়ার আহ্বান, আরও ভালো ভারসাম্য খোঁজার, অন্যদের সঙ্গে সহযোগিতামূলকভাবে কাজ করার, জীবন সঙ্গী পাওয়ার এবং সম্প্রীতির জন্য প্রচেষ্টা করার আহ্বান রয়েছে।

আমাদের বিশ্বের অনেক কিছু পরিবর্তিত হয়েছে এ সময়টিকে কেন্দ্র করে। এক্ষেত্রে বলা যায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কথা। এই ২২২ সিকোয়েন্সেই প্রথম প্লুটো রিটার্ন হয়েছিল। ফ্রান্স ও রাশিয়ায় প্লুটো রিটার্নস নেপোলিয়ন এবং স্ট্যালিনের মৃত্যুকে চিহ্নিত করেছে। স্পেনের শেষ প্লুটো প্রত্যাবর্তনের সময় স্প্যানিশ একনায়ক ফ্রান্সিসকো ফ্রাঙ্কো ক্ষমতা ছেড়ে দিয়েছিলেন।

কেউ কেউ এমনও যুক্তি দেন যে যুক্তরাজ্যের শেষ প্লুটো প্রত্যাবর্তন বিশ্ব নেতার মর্যাদা থেকে তাদের অনানুষ্ঠানিক পতনের সাথে মিলে যায়। ঐতিহাসিকভাবে এ সময়টি তাই অনেক পরিবর্তনের সঙ্গে সম্পর্কিত। তাই ব্যর্থতা দেখতে যতটা বেদনাদায়ক হতে পারে এই সময়টাতে সম্ভাবনা দেখতে পারাটাও অবিশ্বাস্য মনে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.