রংপুরের হাড়িভাঙা আমের দাম বেড়েছে; হতাশা কেটেছে চাষিদের

রংপুরের বিখ্যাত ‘হাড়িভাঙ্গা আমের’ বাম্পার ফলন হয়েছে। জুনের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে হাড়িভাঙ্গার দখলে রয়েছে রংপুরের বাজারগুলো।

তবে কঠোর লকভাউনে দূরপাল্লার বাস, ট্রেনসহ ব্যক্তিগত যােগাযােগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হাঁড়িভাঙ্গার মূল উৎস মিঠাপুকুর উপজেলার পদাগঞ্জে আমের বাজারে ধস নেমেছিল।পাইকারি গ্রাহক না থাকায় ব্যবসায়ীরা দিশেহারা হয়ে পড়েছিল।

তবে লকডাউনে বাঁধাহীনভাবে আম পরিবহন করতে পারায় সেই সংকট কেটে গেছে।গত চার দিন থেকে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ব্যবসায়ীরা আম কিনতে আসায় দাম বেড়ে দ্বিগুন।হতাশা ছাপ কাটিয়ে হাসির মুখ দেখছে পদাগঞ্জ এলাকার আম চাষিরাও।

শুক্রবার (৯জুলাই) বেলা ১২টার দিকে মিঠাপুকুরের পদাগঞ্জ আম বাজারে গিয়ে দেখা যায়,কাঁচা আম (সর্বোচ্চ ভালো) এখন বাজারে

২৪’শ টাকা প্রতি মন, মাঝারি ১৮’শ থেকে ২ হাজার, ছোট সাইজের ১১’শ থেকে ১৬’শ টাকা। পাকা আম (বড় সাইজ) ১১’শ

থেকে ১২’শ টাকা। মাঝারি ৮’শ থেকে এক হাজার টাকা। এছাড়া প্রকারভেদে দাম রয়েছে।কিন্তু গত চার দিন আগেও এই বাজারে কাঁচা আম

(ভালোটা) ১৪’শ টাকা থেকে ১৬’শ টাকা মণ বিক্রি হয়েছে।আর ছোট সাইজ ও পাকা আমের দাম ছিল তার ৮’শ থেকে ১১’শ টাকা।

মৌসুমী আম ব্যবসায়ী লুৎফর রহমান উত্তর বাংলাকে বলেন,কঠোর লকডাউনের কথা শুনে গ্রাহক না আসায় মৌসুমি আম ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকদের পথে বসার উপক্রম হয়েছিল।তিনি আরও বলেন,গত চার দিন আগে বাগানে আম পাকা শুরু হওয়ায় লোকসান করে আম বিক্রি করতে হয়েছে।তবে কয়েকদিন থেকে বাইরের পাইকাররা আসায় দ্বিগুন দামে আম বিক্রি করতে পারছি আমরা।

খোড়াগাছ এলাকার আম চাষি মেহেদি হাসান জানান,পাকা আম মাত্র ৬’শ থেকে ৮’শ টাকা দরে বিক্রি করেছি। আর কাঁচা আম( ভালো মানের) ছিল ১৩’শ থেকে ১৫’শ টাকা। যেটার দাম হবার কথা ছিল সাড়ে তিন হাজার টাকা। এখন পাইকাররা আসতে শুরু করেছে। আমের দামটাও বেড়েছে আর আমাদের হতাশা কেটে গিয়েছে।

অনলাইনে আম ব্যবসায়ী নাঈম ইসলাম উত্তর বাংলাকে বলেন,আমরা অনলাইনে আমের অর্ডার নিয়ে কুড়িয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে গ্রাহকের কাছে আম পাঠাতাম।ভেবেছিলাম লকডাউনে কুড়িয়ার সার্ভিস বন্ধ থাকবে বা আম পাঠানো সমস্যা হবে। কিন্তু লকডাউনেও কুড়িয়ার সার্ভিস গুলোর মাধ্যমে সহজেই দেশের বিভিন্ন জেলায় আম পাঠাতে পাড়ছি।তাই ভালো মূল্যও পাচ্ছি আমরা।

রংপুর কৃষি বিপনন বিভাগের উপ-পরিচালক আনোয়ার হোসেন জানান, রংপুরের মিঠাপুকুরে হাড়িভাঙা আমের বাম্পার ফলন হয়েছে।তবে লকডাউন থাকায় চাষিরা কিছুটা হতাশ হয়েছিল।তবে লকডাউনে আমের গাড়ি যেন কোথাও হয়রানি বা আটক না হয় সে বিষয়টি আমরা নিশ্চিত করেছি। এছাড়া আমরা আম পরিবহণে স্বাক্ষরিত স্টিকার ব্যবহার করতে দিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *